সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৬:৪১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ

কালীগঞ্জে কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগ

রিপোটারের নাম / ৩৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ৮ মে, ২০২২

মুজিবুর রহমান:

কালীগঞ্জের প্রাণ-আরএফএল কোম্পানী থেকে ওয়েস্টেস (পরিত্যক্ত লোহা) মালামাল বের করতে বাধা ও কাউন্সিলরের নেতৃত্বে হামলায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের। আবার পাল্টা অভিযোগ দিলেন কাউন্সিলর নুরে আলম।

গতকাল শনিবার সকাল আনুমানিক সাড়ে ১১টারর দিকে কালীগঞ্জ পৌরসভার গোলাবাড়ি সংলগ্ন প্রাণ-আরএফএল কোম্পানীর সেন্টার ওয়ার্কসপে। এই সংক্রান্ত বিষয়ে ব্যবসায়ী মো.মাদবর আলী মাদু বাদী হয়ে কালীগঞ্জ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরে আলম শেখকে প্রধান আসামি করে ৮ জনের নামে ও ৬/৭ জনকে অজ্ঞাত করে কালীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

তবে কাউন্সিলর চাঁদা দাবির বিষয়টি অস্বীকার করে নুরে আলম শেখ বলেন, আমরা কারো উপর হামলা করিনি।
লিখিত অভিযোগে মো.মাদবর আলী মাদু বলেন, আমি শনিবার সকালে গোলাবাড়ি প্রাণ-আরএফএল কোম্পানীর সেন্টার ওয়ার্কসপ থেকে (চালান নং৭১৬৪৯৮) এ পরিত্যক্ত লোহার মালামাল পিকআপে লোডকরে কোম্পানী থেকে বের হওয়ার সময় স্থানীয় কাউন্সিলর নুরে আলম শেখ, তার ভাই শাহ আলম শেখসহ ১০/১৫ জন লোক বাধা দেয় এবং ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।
পরে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা আমার ও আমার সহযোগীর ওপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে।

আপর দিকে ৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নুরে আলম শেখ তার লিখিত অভিযোগে ৭ জনের নাম উল্লেখ ও ৫০/৬০ জন কে অজ্ঞাত নামা করে থানায় অভিযোগ করেন। তিনি আরো লিখেন যে, আমাকে ও আমার ভাই কে হত্যার উদ্দেশ্যে করে দেশীয় অস্ত্রসহ আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে তিনটি গুলি করে বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন।

যানা যায় কাউন্সিলরের ভাই শাহ আলম শেখ প্রান আর এফ এল কোম্পানির এনজন নিয়মিত ঠিকাদার। বর্তমানে গোলাবাড়ি সংলগ্ন প্রান আর এফ এল গাড়ির বডি বানানো কাজ করছিল। এই কাজ নিয়ে মামুন দীর্ঘ দিন ধরে সত্রুতা করে আসছে। তাই পুর্ব শত্রুতার জের ধরে শনিবার ১১.৩০ সময় মামুন সহ ৫০/৬০ সন্ত্রাসী নিয়ে প্রাণ আর এফ এল ওয়ার্কসপে এসে আমাকে ও আমার ভাই কে হত্যার উদ্দেশ্যে দেশীয় অস্ত্রসহ আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে তিনটি গুলি করে বলে অভিযোগে পাওয়া যায়।
গোলাগুলি সংক্রান্ত গেট সিকিউরিটি ও রোড আস পাশ রাস্তা সংলগ্ন দোকানদারকে জিজ্ঞাসা করলে তারা জানায় এধরনের কোন শব্দ পাই নাই। সেন্টার ওয়ার্কসপের এডমিন মো.তফসির হোসেন বলেন, ঘটনার সময় আমি ওয়ার্কসপে ছিলাম না। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে বলে তিনি স্বীকার করেন।

কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্ছ আনিসুর রহমান বলেন, সংবাদ পেয়ে জরুরী ভিত্তিতে ফোর্স পাঠিয়ে আমি নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। গুলাগুলির কোন আলামত পাইনি। তবে মামুন এর ক্রয়কৃত প্রান আর এফ এলের ওয়েস্টেজ মাল পরিবহনের সময় নুরে আলম নেতৃত্বে বাদা দিলে দুই গ্রুপের মধ্যে মারা মারি লেগে যায়। দুই পক্ষই থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তদন্ত করে আইনগত ব্যাবস্তা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ