বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০১:৩৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ

বাড়িতে ঢুকে চেয়ারম্যানের শিশু পুত্রকে হত্যা

রিপোটারের নাম / ৪২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৮ মে, ২০২২

ফরিদপুর প্রতিনিধি: মে ১৮, ২০২২, ০৮:৩৯ পিএম

ছেলের সঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান মো. মিজান বয়াতি।ছবি: সংগৃহীত

ফরিদপুর: ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার ঢেউখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মিজান বয়াতির বাড়িতে ঢুকে তার ১০ বছরের ছেলে রাফসানকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ হামলায় চেয়ারম্যানের স্ত্রী দিলজান বেগম ওরফে রত্না গুরুতর আহত হয়েছেন। তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানা গেছে।

বুধবার (১৮ মে) বিকেল ৪টার দিকে চেয়ারম্যানের উপজেলা সদরের বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জামাল পাশা গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চেয়ারম্যানের স্ত্রীর অবস্থা গুরুতর। তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। পরে বিস্তারিত জানাতে পারবো।

জানা গেছে, চেয়ারম্যান মিজান বয়াতী ঢাকায় অবস্থান করছেন। বাড়িতে ১০ বছরের শিশুসন্তান রাফসানকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন স্ত্রী দিলজাহান রত্না। বুধবার (১৮ মে) বিকেল ৪টার দিকে ওই গ্রামের সানু মোল্যার ছেলে এরশাদ ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে চেয়ারম্যানের স্ত্রী ও ছেলেকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। এসময় চেয়ারম্যানের স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে এরশাদ পালিয়ে যান। পরে প্রতিবেশীরা দুজনকে উদ্ধার করে সদরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক রাফসানকে মৃত ঘোষণা করেন। রত্নার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে তার চিকিৎসা চলছে, অবস্থা সংকটাপন্ন।

স্থানীয়রা জানান, এরশাদ তার স্ত্রীকে নির্যাতন করতেন। এনিয়ে একাধিকবার সালিশ হয়। চেয়ারম্যান মিজান বয়াতি এই সালিশ করেছিলেন। কয়েকদিন আগে স্ত্রীর সঙ্গে এরশাদের বিয়েবিচ্ছেদ হয়। সালিশের সিদ্ধান্ত পক্ষে না যাওয়ায় চেয়ারম্যানের ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন এরশাদ। সে কারণেই তিনি এই হামলা চালিয়েছেন বলে স্থানীয়দের ধারণা।

এ বিষয়ে সদরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত গোলদার সাংবাদিকদের বলেন, খুব ঝামেলার মধ্যে আছি। বিস্তারিত তথ্য পরে জানাতে পারবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ