বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০১:২৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ

ফসকে বেড়িয়ে গেলেন, চূড়ান্ত প্রতিবেদনে আনভীর নির্দোষ

রিপোটারের নাম / ৪২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৪ জুলাই, ২০২১

ফসকে বেড়িয়ে গেলেন, চূড়ান্ত প্রতিবেদনে আনভীর নির্দোষ

আদালত প্রতিবেদক

কলেজ ছাত্রী মোসরাত জাহান মুনিয়াকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ প্রমাণ হয়নি মর্মে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছে পুলিশ। সম্প্রতি বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলায় নির্দোষ প্রমানিত হয়েছে।

গত ১৯ জুলাই আদালতে ওই ‘ফাইনাল রিপোর্ট’ দাখিল করা হয়েছে বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, মুনিয়ার আত্মহত্যায় বসুন্ধরার এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। আগামী ২৯ জুলাই ওই প্রতিবেদনের ওপর শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে আদালতে।

মুনিয়াকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলায় সায়েম সোবহান আনভীরকে নির্দোষ বলে তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়ে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন মুনিয়ার বোন ও মামলার বাদী নুসরাত জাহান তানিয়া।

তিনি পুলিশের এই প্রতিবেদনের ওপর নারাজি দেওয়ার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, মামলা থেকে একমাত্র অভিযুক্ত আনভীরকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা অন্যায়। এর বিরুদ্ধে আদালতে যাব, নারাজি বা অনাস্থা দেব বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

আরো বলেন, আনভীরকে অব্যাহতি দেওয়া হলে দেশে অন্যায়ের বিচার হবে কী করে- এমন প্রশ্ন রেখে নুসরাত জাহান বলেন, মাস দেড়েক আগে পুলিশের সংশ্লিষ্ট বিভাগের এডিসি নাজমুল সাহেবের সঙ্গে কথা হয়। তার পর অনেকবার ফোন করা হলেও সাড়া দেয়নি পুলিশ। এতে ‘একটা কিছু হতে যাচ্ছে’ বুঝতে পারার মধ্যেই এই খবর পেলাম।

পুলিশ শুরুতেই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন সেই পুলিশই জড়িত থাকার পর আনভীরকে অব্যাহতি দেওয়ার কথা বলছে। কেন এমনটি হচ্ছে, বুঝে উঠতে পারছেন না তিনি, আরো বলেন, একটি দালাল চক্র সর্বদা তাকে বাচানোর জন্য উঠেপরে লেগেছে। তাদের চিন্তা করা উচিতছিল যে, যদি মুনিয়া তার বা তাদের বোন হতো।

প্রতিবেদনটি গ্রহণ করা না করার বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী ২৯ জুলাই দিন ধার্য করেছেন আদালত। সেদিন আদালতে গিয়ে নারাজি দেওয়ার কথা জানিয়েছেন নুসরাত জাহান। তবে এ নিয়ে আনভীরের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া এখনো পাওয়া যায়নি।

গত ২৬ এপ্রিল সন্ধ্যার পর গুলশান ২-এর একটি ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান মুনিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই তরুণীর বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে গুলশান থানায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহানকে আসামি করেন। মুনিয়ার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুর রহমান। তাদের বাড়ি কুমিল্লার উজির দিঘিরপাড়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ