সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৫:৫২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ

পুলিশের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে তরুণীর আত্মহত্যা

রিপোটারের নাম / ৪০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২২

রংপুর  ২৪ জানুয়ারি

 

ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার থেকে রুহি আক্তার নামে এক তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার রাতে রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানার ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের ২য় তলা থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।
এ ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় গঙ্গাচড়া উপজেলা থেকে পুলিশ  রুহির কথিত প্রেমিক মিতুন ওরফে আকাশকে গ্রেপ্তার করেছে।

মিথুনের বাড়ি গঙ্গাচড়ার ধামুর মুন্সিপাড়া এলাকায়। তিনি আকাশ নাম ধারন করে ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেম করছিল।

জানা যায়, ঝিনাইদহের হরিনাকুণ্ডু থানার হরিয়ারঘাট গ্রামের সেকেন্দার আলীর মেয়ে রুহির সঙ্গে রংপুরের বাহার কাছনা রাম গোবিন্দমোড় এলাকার আকাশ নামের এক যুবকের পরিচয় হয়। সেই সূত্রে মুঠোফোনে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কও গড়ে ওঠে।

গত বছরের মার্চে প্রথম দফায় ওই তরুণী ঝিনাইদহ থেকে আকাশের সঙ্গে দেখা করতে রংপুরে আসেন। কিন্তু রংপুরে এসে ওই যুবকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি তিনি।

এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্দেশ্যহীন ঘোরাফেরা করতে দেখে ৯৯৯ এ ফোন দিলে পুলিশ সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে নিয়ে যায়। পরে স্বজনদের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হয়।

এরপর গত শনিবার দ্বিতীয় দফায় ওই তরুণী আকাশের সঙ্গে দেখা করতে ঝিনাইদহ থেকে আবারও রংপুরে চলে যান। এবারও আকাশের মুঠোফোন বন্ধ পান তিনি।

ওই তরুণীকে উদভ্রান্তের মতো এলাকায় ঘোরাঘুরি করতে দেখে রাত সাড়ে ৩টার দিকে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে হারাগাছ থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে কোতয়ালী থানার ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে নিয়ে যায়।

সেখানে থাকাকালীন গতকাল রোববার রাতে সিলিংয়ে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন রুহি। খবর পেয়ে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা বিষয়টি থানাকে অবহিত করেন। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে রুহির লাশ উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। রংপুর মেট্রোপলিটন কোতয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) হোসেন আলী গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মিথুনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

এ বিষয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি অ্যান্ড মিডিয়া) সাজ্জাদ হোসেন জানান, ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের ফ্যানে ফাঁস দিয়ে ওই তরুণী আত্মহত্যা করেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ