শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৬:১৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
চুমকি আপার পক্ষে নেত্রকোনায় ত্রান বিতরন পদ্মা সেতু উদ্ভাধন উপলক্ষে কালীগঞ্জে বিজয় র‌্যালী কালীগঞ্জে সেলাই মেশিন , কৃষকের মাঝে সার ও যুব উন্নয়নের ঋণ বিতরণ দেলদুয়ারে বিনামুল্যে সার বীজ বিতরণ কালীগঞ্জে পরিত্যক্ত ঘর থেকে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শ্যামনগরে শোভাযাত্রায় ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ছেলে ও ছেলে বৌয়ের বিরুদ্ধে বাবা মা কে মারধোর অভিযোগ থানায় মামলা যান্ত্রিক এবং মানবিক ক্রুটি দূর করতে পারলে ইভিএম গ্রহণযোগ্য হবে কালীগঞ্জে সমন্বিত পরিকল্পনা প্রনয়ণ বিষয়ক কর্মশালা কালীগঞ্জে নারী উদ্যোক্তা প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে ভাতা বিতরণ 

কালীগঞ্জের কৌচান গ্রামে স্কুুল ছাত্রীকে পাশবিক নির্যাতন, শ্লীলতাহানী ও ধর্ষণের চেষ্টা ,প্রত্যাহারের জন্য চাপ, মামলা নেয়নি পুলিশ।

রিপোটারের নাম / ৪১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ৬ জুন, ২০২১

কালীগঞ্জের কৌচান গ্রামে স্কুুল ছাত্রীকে পাশবিক নির্যাতন, শ্লীলতাহানী ও ধর্ষণের চেষ্টা ,প্রত্যাহারের জন্য চাপ, মামলা নেয়নি পুলিশ।

থানায় অভিযোগ ও ঘটনা সুত্রে জানা যায়, চুপাইর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ এক ছাত্রী প্রতিবেশী পিসির বাড়িতে পড়তে যেত। বাড়িতে ফেরার সময় প্রতিবেশী কবিরাজ জেঠু তাকে জোর করে ঘড়ে তুলে নিয়ে পাশবিক নির্যাতন, শ্লীলতাহানী ও তার শরীলের স্পর্শকাতর স্থনে হাত বুলিয়ে ধর্ষনের চেষ্ঠা করে আসতো।
অবশেষে ছাত্রী বাবামার নিকট জানালে ছাত্রীর বাবা থানায় দায়ের করেন। লিখিত অভিযোগে জানা যায়, শিক্ষার্থী বিষয়টি তার বাবু ও মাকে বলে দিবে বলতেই অভিযুক্ত উমাকান্ত পালের ছেলে সন্তুষ পাল (৫০) ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে বলে, যদি তারা জানে তাহলে তোর বাবাবা/মাকে মেরে ফেলবো, বলে ৪০০ টাকা হাতে দিয়ে বলতে বারন করে। স্থানীয়রা জানায় কবিরাজের দোহায় দিয়ে মহিলাদের রাতে বাড়িতে অবস্থানের সর্তে ২২ হাজার ৫ হাজার টাকা জরিমানা গুনেছে। সে অসত থাকায় ছেলের বউ বাবার বাড়িতে অবস্থান করে।
পরে ছাত্রীর বাবা/মা পিতুষ পাল কালীগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। কালীগঞ্জ থানার এসআই মনিরুজ্জামান ২ সহযোগীকে নিয়ে ঘটনাস্থলে যায়। ঘটনার পর থেকে সন্তুষ পাল বাড়িতে তালা ঝুলিয়ে আত্ব:গোপন করে। সেখানে বাদীর বাড়িতে না গিয়ে আসামী সন্তষ পালের বাড়িতে গিয়ে আম, কাঠাল খেয়ে থানায় ফিরে আসেন বলে অভিযোগ করেন। পরিবারের নিরাপত্তা ও সঠিক বিচারের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন অসহায় পরিবার।
মানবাধিকারের পরিচয়ে বিচার করেদেবে বলে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে সন্তষ পাল দুটি গরু বিক্রয় করে মোটা অংঙ্কের টাকা ছড়িয়ে ছিটিয়ে দেয়। অবশেষে টাকার চাপে মামলাটি ধামা-চাপা দিতে দালালগন উঠেপরে লাগে। উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান এড. মাকসুদুল আলম খানকে অভিযোগ দেয়ায় তা প্রত্যাহার করতে চাপ দেয় তারই পরিবার থেকে। গতাকল রবিবার কোন বিচার না পাওয়ায় সকালে বাদি পরিবার সহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারজানা ইয়াসমিনের সাথে দেখা করেন।
এলাকার যুবসমাজ জঘন্ন কাজে দোষী ব্যাক্তিকে আইনের আওতায় নিয়ে বিচারের দাবি জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ