শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
চুমকি আপার পক্ষে নেত্রকোনায় ত্রান বিতরন পদ্মা সেতু উদ্ভাধন উপলক্ষে কালীগঞ্জে বিজয় র‌্যালী কালীগঞ্জে সেলাই মেশিন , কৃষকের মাঝে সার ও যুব উন্নয়নের ঋণ বিতরণ দেলদুয়ারে বিনামুল্যে সার বীজ বিতরণ কালীগঞ্জে পরিত্যক্ত ঘর থেকে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার আ’লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শ্যামনগরে শোভাযাত্রায় ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ছেলে ও ছেলে বৌয়ের বিরুদ্ধে বাবা মা কে মারধোর অভিযোগ থানায় মামলা যান্ত্রিক এবং মানবিক ক্রুটি দূর করতে পারলে ইভিএম গ্রহণযোগ্য হবে কালীগঞ্জে সমন্বিত পরিকল্পনা প্রনয়ণ বিষয়ক কর্মশালা কালীগঞ্জে নারী উদ্যোক্তা প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে ভাতা বিতরণ 

এ কী বললেন এমপি পুত্র

রিপোটারের নাম / ৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২

 


নিজস্ব প্রতিবেদক মে ১৮, ২০২২,

পাবনা: আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ভুলভাল তথ্যে বক্তব্য দিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন পাবনার ঈশ্বরদীর যুবলীগ নেতা ও পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের এমপি নুরুজ্জামান বিশ্বাসের পুত্র দোলন বিশ্বাস।

১৭ মে ঈশ্বরদী রেলস্টেশন এলাকায় আনন্দ মিছিল পরবর্তী বক্তব্যে একাধিক ভুল তথ্য উপস্থাপন করেন তিনি। বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি।

ভাইরাল হওয়া বক্তব্যে দেখা যায়, আনন্দ মিছিল শেষে নেতাকর্মীর উদ্দেশে পথসভায় বক্তব্য রাখছেন এমপি পুত্র দোলন বিশ্বাস। শুরুতেই তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ১৭ মে সামরিক জিয়া সরকারের হুমকি উপেক্ষা করে দেশে ফেরেন শেখ হাসিনা। এর কিছুক্ষণ পরেই আবারো তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা। সামরিক সরকারের ষড়যন্ত্রে দীর্ঘদিন বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যাকে দেশে ফিরতে দেয়া হয়নি। পরে, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের আন্দোলনের মুখে সামরিক সরকার শেখ হাসিনাকে দেশে ফিরতে দিতে বাধ্য হয়।

বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক ও মেসেঞ্জারে মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে। ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন এমপিপুত্র যুবলীগ নেতা দোলন বিশ্বাস।

বক্তব্যে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ১৯৮১ সালের ১৭ মের স্থলে ১৯৭১ সাল এবং বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড ১৯৭১ সালের ১৫ আগস্ট উল্লেখ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন একাধিক সাবেক ছাত্রনেতা। একই সাথে ১৯৮১ সালে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নামের কোন সংগঠন ছিলো না। সেখানেও দোলন বিশ্বাস ইতিহাস বিকৃত করেছেন বলে মন্তব্য করেন।

পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি কামরুজ্জামান রঞ্জন বলেন, ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির কলঙ্কিত দিন। ছোট শিশুরাও জানে কবে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছে। আওয়ামী লীগের নেত্রীর ফিরে আসার দিন ১৯৮১ সালের ১৭ মে, সেটিও আওয়ামী চেতনার প্রতিটি মানুষের কাছে আবেগের দিন ও একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। আওয়ামী পরিবারের মানুষের কাছ থেকে এসব ঐতিহাসিক দিন নিয়ে ভুল মেনে নেয়া যায় না। ভুলভাল তথ্য দিয়ে তিনি সবার কাছে হাসির পাত্র হয়েছেন। পাশাপাশি দলের ভাবমূর্তিও ক্ষুন্ন করেছেন।

তবে, বক্তব্যের তথ্যগত ভুল স্বীকার করে এমপি পুত্র দোলন বিশ্বাস বলেন, বিষয়টি স্লিপ অব টাং হয়েছে। গতকাল প্রচণ্ড গরমের মাঝেও নেত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের সবচেয়ে বড় মিছিল আমরা করেছি। মিছিল শেষে অনেক নেতাকর্মী অস্থির হয়ে পড়েছিলো। দ্রুত প্রোগ্রাম শেষ করতে গিয়ে বক্তব্যে কিছুটা ভুল হয়েছে। বিষয়টির জন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করেছি। ক্ষমাও চেয়েছি। উপজেলা যুবলীগের সম্মেলনে প্রার্থী হওয়ায় একটি মহল বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে আমাকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে বলেও তিনি দাবি করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ